• Home
  • খবর
  • মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শিশু মৃত্যু নিয়ে ব্যাপক উত্তেজনা
খবর পশ্চিম মেদিনীপুর

মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শিশু মৃত্যু নিয়ে ব্যাপক উত্তেজনা

নিজস্ব সংবাদদাতা পশ্চিম মেদিনীপুর ৩ অক্টোবরঃঃ   মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নবনির্মিত মাতৃমা নামক শিশু ও মাতৃ পরিষেবা কেন্দ্রে চিকিৎসকদের গাফিলতি ও আয়াদের তোলাবাজিতে উত্তেজনা ছড়ালো মঙ্গলবার রাতে। ১৯ দিনের এক শিশু চিকিৎসকদের গাফিলতিতে মৃত্যুর অভিযোগ তুলে ব্যাপক গন্ডগোল হয় মঙ্গলবার রাত দশটা থেকে। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়।
গত 3 সপ্তাহ আগে মেদিনীপুর সদর ব্লকের এক প্রসূতিকে মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সদ্য নির্মিত মাতৃমাতে ভর্তি করা হয়। প্রায় 15 কোটি টাকা খরচ করে মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওই বিশেষ ভবনটি তৈরি করা হয়েছে। যেখানে শিশু ও মায়ের বিশেষ পরিষেবা দেওয়া হবে একই ছাতার তলায়। সেই পরিষেবা দেওয়া শুরু হতেই ভুরি ভুরি অভিযোগ উঠেছে। সবথেকে বড় সমস্যা মাথাচাড়া দিয়েছে আয়াদের তোলাবাজি। এই কেন্দ্রে গত ৩ সপ্তাহ আগে মেদিনীপুর সদর ব্লকের এক প্রসূতিকে ভর্তি করা হয়েছিল। শুরু থেকেই শিশুর চিকিৎসা পরিষেবা নিয়ে অভিযোগ ছিল তার পরিবারের। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন শিশুর অবস্থা খারাপ ভেন্টিলেশনে রাখতে হবে। কিন্তু মেদিনীপুর হাসপাতালে ওই বিভাগে শিশুদের ভেন্টিলেশন মেশিন নাকি খারাপ হয়ে গিয়েছে। ডাক চিকিৎসকরা জানিয়ে দেন শিশুকে অন্যত্র নিয়ে গেলেও সমস্যা হতে পারে। পরিবারের অভিযোগ এর সমস্ত কথাবার্তা বলে চিকিৎসকরা খুব একটা গুরুত্ব ছিল না শিশুটির দিকে। এরপর মঙ্গলবার জানিয়ে দেয় শিশুটির মৃত্যু হয়েছে। তারপর এই উত্তেজনা ছড়ায় ওই পরিবারের লোকজনের মধ্যে। চিকিৎসার গাফিলতিতে মৃত্যুর অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখান তারা।

মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এই ধরনের দামি ও নতুন মেশিন খারাপ হয়ে যাবার পেছনে পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র দেখছে স্থানীয়রা। তাদের অভিযোগ চিকিৎসকরা কৌশলে শিশুদের নিজেদের নার্সিংহোমে ভর্তি করার জন্য পরিকল্পিতভাবে এই মেশিন খারাপ করে দেয়।

এই নবনির্মিত বহু দামি ভবনটির পরিষেবাতে সবথেকে বড় সমস্যা দেখা দিয়েছে আয়াদের তোলাবাজি। হাসপাতালে ঢোকানো থেকে সিড়িতে ওঠানো এবং বেড পাওয়া পর্যন্ত আয়ারা একচ্ছত্র আধিপত্য চালিয়ে যায়। প্রতিটি পদক্ষেপে নাকি 100 থেকে 500 টাকা অবধি তাদের মেটাতে হয়। টাকা না দিলে রোগীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা হয় যে কোনো রকম পরিষেবার ক্ষেত্রে ব্যাঘাত তৈরি করে আয়ারা। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সব জানলেও মুখ বুঝে থাকেন।

একাধিক এই ধরনের কারণ নিয়ে উত্তেজনা ছড়ায় হাসপাতাল চত্বরে। তবে চিকিৎসকদের বা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে কেউ কোনো মন্তব্য করতে চায়নি।

Related posts

বিজয়ার রাতে হাতির হানা

Topnewstoday

কোচবিহারে তৃণমূলের শারদ শুভেচ্ছার বাইক র‍্যালি

Topnewstoday

শিলিগুড়িতে ৫৫ কেজি সোনা পাচার

Topnewstoday

Leave a Comment