ভ্রমণ

বর্ধমানের কয়েকটি বড় পুজো

নিজস্ব সংবাদদাতা বর্ধমান, ১৪ অক্টোবরঃ তিতলির ডানার ঝাপট বন্ধ হয়ে গিয়েছিল শনিবার বেলা গড়াতেই। রীতিমত শীতের আমেজযুক্ত কনকনে ঠাণ্ডা হাওয়ার পাশাপাশি আকাশ জুড়ে দেখা গিয়েছিল তারাদের। হুহু করে ছুটে যাওয়া কালো মেঘের বদলে দেখা মিলেছিল পেঁজা তুলোর মেঘকেও। এমনকি শনিবার রাত থেকেই বর্ধমান শহরের বিভিন্ন এলাকায় ভরে গিয়েছিল কুয়াশায়। আর রবিবার সকাল হতেই দেখা মিলেছিল ঝলমলে রৌদ্রোজ্জ্বল দিনের। আর তারপরেই রাস্তায় নামতে শুরু করে দিলেন সাধারণ মানুষ। বিভিন্ন মণ্ডপে মণ্ডপে হালকা ভিড় নজরে পড়ল এদিন দুপুর থেকেই। কপোত-কপোতীদের সেলফি তোলার ধুমও বাড়তে শুরু করল। সন্ধ্যে নামতেই আলো ঝলমলে পুজো মণ্ডপগুলো যেন গত কয়েকদিনের অবিরত ধারায় ঝিরঝিরে বৃষ্টির কাদা প্যাচপেচে পরিস্থিতি থেকে বেড়িয়ে আসার অপেক্ষা করছিল। সকাল থেকেই পুজো উদ্যোক্তাদের দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণও নজরে এল। তিতলির হাত থেকে বাঁচতে মণ্ডপের মাথায় দেওয়া ত্রিপলগুলোকে একের পর এক খুলে দিতেই মণ্ডপসজ্জার কারিকুরি চোখ ধাঁধিয়ে দিয়ে শুরু করল। বস্তুত, শনিবার রাত থেকেই মোটামুটি ইঙ্গিত মিলেছিল তিতলির বিদায়ের। আর রবিবার পঞ্চমীর দিন ঝলমলে সকাল পেতেই পুজো উদোক্তাদের মধ্যে চওড়া হাসি ফুটে উঠল। গত কয়েকদিন ধরে তিতলির ডানার ঝাপটে রীতিমত দুশ্চিন্তায় কালো মেঘ সরে গিয়ে রবিবারের ঝলমলে সকাল থেকেই জায়গায় জায়গায় মণ্ডপে মণ্ডপে দর্শনার্থীদের আনাগোনা রাত হতেই ভিড়ে পরিণত হল।

বর্ধমান শহরের বড় পুজো উদ্যোক্তাদের মধ্যে রয়েছে লালটু স্মৃতি সংঘ। ৫৭ বছরে পা দেওয়া বর্ধমানের লাল্টু স্মৃতি সংঘের এবারের থিম গুজরাটের ডাণ্ডিয়া উৎসব – নবরাত্রিকে ঘিরে। ক্লাব সম্পাদক তন্ময় সামন্ত জানিয়েছেন, মেদিনীপুরের খেজুরির শিল্পী গোপাল মণ্ডল তৈরী করেছেন এই অভিনব মণ্ডপ। গোটা মণ্ডপকে সাজানো হয়েছে বিভিন্ন পুতুল তথা মডেল দিয়ে। যেখানে তুলে ধরা হয়েছে গুজরাটের বিভিন্ন দিককে। উটের বিভিন্ন মডেল ছাড়াও মণ্ডপে তুলে ধরা হয়েছে মহিলাদের ডাণ্ডিয়া খেলার বিভিন্ন দৃশ্যকে। মণ্ডপসজ্জার সঙ্গে সাযুজ্য রেখেই কুমারটুলির শিল্পী মিণ্টু পাল তৈরী করেছেন প্রতিমা। ক্লাব সম্পাদক তন্ময় সামন্ত জানিয়েছেন, এবারে পুজোর বাজেট প্রায় ২৫ লক্ষ টাকা।

কেন্দ্রীয় সরকারের বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও থেকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কন্যাশ্রী – যার মূলে রয়েছে কন্যা সন্তানদের রক্ষা করার প্রচেষ্টা। আর সেই কন্যা ভ্রূণকে রক্ষা করার বার্তা দিতে বর্ধমানের সবুজ সংঘের মণ্ডপ সজ্জার থিম কন্যা ভ্রুণে মা। সবুজ সংঘের সম্পাদক বাপি বোস জানিয়েছেন, এবারে তাঁদের পুজোর বাজেট প্রায় ৩৫ লক্ষ টাকা। তিনি জানিয়েছেন, যেভাবে দিকে দিকে প্রায়শই কন্যা ভ্রুণকে নষ্ট করার ঘটনা ঘটে তাকেই এবারে মণ্ডপ সজ্জায় তুলে ধরা হয়েছে।

বর্ধমানের আর এক নামী পুজো উদ্যোক্তা পদ্মশ্রী সংঘের এবারের পুজোর বাজেট প্রায় ৩৭ লক্ষ টাকা ছুঁইছুঁই। পুজো কমিটির সদস্য প্রভাত দাস জানিয়েছেন, দক্ষিণভারতের একটি মন্দিরের আদলে কাল্পনিক এই মণ্ডপ তৈরী করা হয়েছে। মণ্ডপে ব্যবহার করা হয়েছে গৃহস্থালীর নিত্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন স্টীলের জিনিসপত্র। যার মধ্যে রয়েছে চামচ, ধূপদানি, স্টীলের বিভিন্ন ধরণের পাত্র। প্লাষ্টিক বোর্ডের ওপর সেগুলিকে বিভিন্ন আঙ্গিকে সাজিয়ে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে গোটা মন্দিরকে। পদ্মশ্রীর পুজো এবার ৬৮ বছরে পা দিল।

Related posts

সরকারি প্রকল্পের সংগে কিছুক্ষণ- পুজোতে থিম লোয়ার বাগডোগরা সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি

Topnewstoday

আহিরীটোলা যুবকবৃন্দের পুজো থিম যৌনকর্মীদের নিয়ে উৎসারিত আলো

Topnewstoday

ইতি তোমার মা -এবারের পুজো বর্ধমানের বড়শুল ইয়ংম্যানস ক্লাব

Topnewstoday

Leave a Comment