আসন্ন সংকট

অনাবৃষ্টি মাকলি গ্রামে ১০০ চাষির হাহাকার

Top News Today পশ্চিম মেদিনীপুর ৩ নভেম্বরঃ

বর্ষার ধান যখন গোটা রাজ্যের চাষিরা শীতের শুরুতেই ঘরে তুলছেন ঠিক উল্টো ছবিটা পশ্চিম মেদিনীপুরের গোয়ালতোড় এর মাকলি গ্রাম পঞ্চায়েতের কয়েকটি এলাকায়। এবছর বর্ষাতে বা তার পরে বৃষ্টির দেখা তেমন না মেলায় মাথায় হাত মাকলি গ্রাম পঞ্চায়েতের পেরুবাদ, কলাবতী, ও ঘাগড়া এই তিনটি গ্রামের প্রায় 100 চাষির।

শীতের শুরুতে সবাই যখন মহানন্দে মাঠের ধান ঘরে তুলছেন ঠিক তখন ঐ সমস্ত গ্রামের চাষিদের চোখের সামনে বৃষ্টি না হওয়ার কারণে জমির ধান জমি নষ্ট হয়েছে। ফুটিফাটা মাঠে সমস্ত ধান গাছ নষ্ট হয়ে গেছে। বিঘার পর বিঘা জমি বৃষ্টি না হওয়ার কারণেই কিন্তু শুকিয়ে গেছে ধান। শুধুমাত্র আকাশের বৃষ্টির উপর নির্ভরশীল ঐ সমস্ত গ্রামের ধান চাষ। নেই কোনো বিকল্প ব্যবস্থা। আর তাই সমস্যায় পড়েচে 100টি চাষি পরিবার।

পশ্চিম মেদিনীপুরের একদম জেলার শেষ প্রান্ত জঙ্গলঘেরা এই গ্রামে অন্য কোনো বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় এই সমস্যা বলে জানান এলাকার মানুষ। বারে বারে সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েও কোনো কাজ হয়নি। শুধুই মিলেছে প্রতিশ্রুতি। জীবন জীবিকার একমাত্র উপায় চাষবাস আর তাতেও এবার মার খাওয়াতে সমস্যায় ঐ সমস্ত গ্রামের বাসিন্দারা।

আগামী দিনগুলো কীভাবে চলবে সংসার, কিভাবে কাটবে মহাজনের দেনা তা নিয়ে চিন্তিত চাষি ও তার পরিবার। তাই তারা বারবার প্রশাসনের কাছে আবেদন জানিয়েছেন কিছু সাহায্যের। যদিও সেই আবেদনে এখনো সাড়া মেলেনি। এখন দেখার সরকার কতটা হাত বাড়িয়ে দেন ওই সমস্ত প্রান্তিক চাষিদের।

Related posts

হিমোফেলিয়া এক ভয়াবহ রোগের নাম, কোন প্রতিষেধক নেই অত্যন্ত খরচ সাপেক্ষ চিকিৎসা পদ্ধতি রোগীর সংখ্যা রাজ্যে ১ লাখেরও বেশি ছাপিয়ে যাবারও আশংকা

Topnewstoday

নিভুনিভু মাটির প্রদীপ

Topnewstoday

জলের তীব্র সংকটে জেলায় আমন ধানের ক্ষতি

Topnewstoday

Leave a Comment