• Home
  • খবর
  • ঘোষ এণ্ড গাভী কল্যাণ সমিতি রাজ্য জুড়ে দুধের ভেজাল কারবারীদের বিরুদ্ধে কঠোরতম শাস্তির দাবী তুলল
খবর পূর্ব বর্ধমান

ঘোষ এণ্ড গাভী কল্যাণ সমিতি রাজ্য জুড়ে দুধের ভেজাল কারবারীদের বিরুদ্ধে কঠোরতম শাস্তির দাবী তুলল

নিজস্ব সংবাদদাতা, পূর্ব বর্ধমান, ২১ নভেম্বর;
রাজ্য ঘোষ এণ্ড গাভী কল্যাণ সমিতি রাজ্য জুড়ে দুধের ভেজাল নিয়ে ভেজাল কারবারীদের বিরুদ্ধে কঠোরতম শাস্তির দাবী তুলল।

সংগঠনের রাজ্য সভাপতি বাপ্পাদিত্য ঘোষ জানিয়েছেন, এব্যাপারে তাঁরা সংগঠনের পক্ষ থেকেও নজরদারী শুরু করেছেন। যাঁরা এই ভেজাল কারবারের সঙ্গে যুক্ত তাঁদের সাবধান করে দেবার পাশাপাশি সরাসরি জানিয়ে দেওয়া হয়েছে দুধের যেকোনোরকম ভেজালের খবর পেলেই সংগঠনের পক্ষ থেকে তাঁদের পাকড়াও করে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

এব্যাপারে সংগঠন কড়া মনোভাব নিয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই যাঁরা পাউডার দুধ থেকে ছানা তৈরী করছেন তাদের সাবধান করে দেওয়া হয়েছে। বাপ্পাদিত্যবাবু জানিয়েছেন, শুধু ভেজাল কারবারীকেই কঠোরতম শাস্তি দেওয়া নয়, তাঁরা চাইছেন এব্যাপারে তাঁদের পশুগুলিকেও সরকার বাজেয়াপ্ত করুক। খুব শীঘ্রই এই দাবীকে সামনে রেখে রাস্তা অবরোধের মত কর্মসুচীতেও নামছেন তাঁরা।

সম্প্রতি দুধের দাম বৃদ্ধি সহ এই ২০ দফা দাবীকে সামনে রেখে বর্ধমানে রাস্তায় দুধ ঢেলে বিক্ষোভ দেখায় গোয়ালারা। তিনি জানিয়েছেন, গোয়ালাদের ২০ শতাংশ সংরক্ষণ প্রদান, দুগ্ধজাত শিল্পকে কুটির শিল্পের মর্যাদা দেওয়ার মত বিষয়গুলির পাশাপাশি ভেজাল দুধ ও দুধজাত সামগ্রী বন্ধ করা এবং এর সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তি বা সরকারী কর্মচারীদের চরম শাস্তিরও দেওয়ার দাবীতে তাঁরা লড়াই করছেন।

আগামী ৫ ডিসেম্বর নদীয়ার নাকাশীপাড়ার বেথুয়াডহরীর দেশবন্ধু স্মৃতি পাঠাগার প্রাঙ্গণে বিশাল জনসভার ডাক দিয়েছে ঘোষ এণ্ড গাভী কল্যাণ সমিতি। সেখানেও এই বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

বাপ্পাদিত্যবাবু জানিয়েছেন, বর্তমান সময়ে বাংলা আর কৃষিপ্রধান রাজ্য নয়, পরিণত হয়েছে পশুপালন রাজ্যে। রাজ্যের প্রায় ৬০ শতাংশ মানুষই পশুপালনের সঙ্গে যুক্ত। তিনি জানিয়েছেন, রাজ্য সরকারের কাছে তাঁরা দীর্ঘদিন ধরেই রাজ্যের উৎপন্ন দুধ কিনে নেবার আবেদন জানিয়ে আসছেন। কিন্তু এখনও কোনো সুরাহা হয়নি।

তিনি জানিয়েছেন, কেবলমাত্র পূর্ব বর্ধমান জেলাতেও গড়ে প্রতিদিন প্রায় ২ লক্ষ কুইণ্টাল দুধ উৎপন্ন হয়। ৪০ হাজার কুইণ্টাল দুধ প্রতিদিন প্রয়োজন হয় ১০ থেকে ১২ হাজার কেজি ছানার জন্য। তিনি জানিয়েছেন, সম্প্রতি বেসরকারী বেশ কয়েকটি সংস্থা চাষীদের অত্যন্ত সুকৌশলে মহাজনী ঋণের মতই তাদের ফাঁদে ফেলা হচ্ছে। এব্যাপারে রাজ্য প্রাণী সম্পদ বিকাশ দপ্তরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ জানিয়েছেন, দুধে ভেজাল সংক্রান্ত বিষয়টি অত্যাবশ্যকীয় পণ্য দপ্তরের বিশেষ সেল দেখছেন। এই দপ্তরের পক্ষ থেকে তাঁরা সবরকমের সহযোগিতা করছেন।

চাষীদের দুধ সরকারীভাবে কেনা হচ্ছে না বলে চাষীদের অভিযোগ সম্পর্কে তিনি জানিয়েছেন, এরকম কোনো অভিযোগ তিনি পাননি। পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি জানিয়েছেন, চাষীরা সরকারীভাবে দুধ দিতে চাইলে তাঁরা নেবার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন।

Related posts

শিলিগুড়িতে প্রায় ১০ কেজি সোনা উদ্ধার আটক এক

Topnewstoday

বাইক চোর সন্দেহে এক ব্যক্তিকে মারধরের অভিযোগ উঠল স্থানীয়দের বিরুদ্ধে

Topnewstoday

আদিবাসী ছাত্রীর যৌন হেনস্থায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে আদিবাসী কুর্মি সমাজের থানা ঘেরাও ও জাতীয় সড়ক অবরোধ খড়গপুর-এ

Topnewstoday

Leave a Comment