• Home
  • খবর
  • বালি মাফিয়াদের সঙ্গে পুলিশি যোগসাজশের অভিযোগ করেছিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী, এবার প্রমাণ হাতেনাতে
খবর পশ্চিম মেদিনীপুর

বালি মাফিয়াদের সঙ্গে পুলিশি যোগসাজশের অভিযোগ করেছিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী, এবার প্রমাণ হাতেনাতে

নিজস্ব সংবাদদাতা, পশ্চিম মেদিনীপুর, ৬ ডিসেম্বর;
বালি মাফিয়াদের দৌরাত্ম্যের পিছনে প্রশাসনের একাংশের যে হাত রয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রশাসনিক বৈঠক থেকে সেই অভিযোগ তুলেছিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। এবার প্রমাণ মিলল হাতেনাতে।

বালি বোঝাইকারি ট্রাক ড্রাইভারদের অভিযোগ, খাদান থেকে বালি নিয়ে আসার পথে পুলিশকে তোলা দিতে হয় ।সেই তোলার জন্য প্রত্যেকটি থানার রয়েছে একটি নিজস্ব স্লিপ । একেকটি থানার স্লিপ দেখতে একেক রকম, স্লিপের রঙেও রয়েছে ফারাক। আর এই স্লিপ দিয়েই নিত্যদিন পুলিশের পকেটে যাচ্ছে কয়েক লক্ষ টাকা।

এক একটি বালি গাড়ি পিছু পুলিশকে তোলা দিতে হয় দুই থেকে আড়াই হাজার টাকা। কিন্তু সরকারি নির্দেশিকায় এভাবে টাকা নেওয়ার কোন নিদান নেই। টাকা না দিলে চলবে না লরি। ভাংচুরের পাশাপাশি রয়েছে নানা কেস দেওয়ার অভিযোগ। আর এর ফলেই বিপাকে পড়ছে বালি গাড়ির চালকরা।

মেদিনীপুর শহর লাগোয়া বালি হাটি, উত্তর সিমলা, জিনশহর,মোহনপুর সহ আশেপাশের বেশ কয়েকটি গ্রাম থেকে বারোশো লরি নিত্যদিন বালি বোঝাই এর কাজ করে। পুলিশের জুলুম বাজির অভিযোগে ইতিমধ্যেই ট্রাক ড্রাইভাররা বন্ধ করেছে বালি বোঝাই এর কাজ। মেদিনীপুর শহর লাগোয়া উত্তর সিমলা গ্রামে যেতেই বোঝা গেল ক্ষোভের আঁচ।

মুখ্যমন্ত্রী সতর্কবার্তার পরেও প্রশ্ন উঠছে থানা এবং প্রশাসন যদি এরকম অবৈধভাবে টাকা নেয় তাহলে কিভাবে রোখা যাবে বালি পাচার। যদিও এ প্রসঙ্গে মুখে কুলুপ এঁটেছে জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা। প্রশ্ন উঠছে তাহলে কি অবৈধ বালি পাচার এর ক্ষেত্রে পুলিশি ভূমিকা নিচ্ছে না।

Related posts

উত্তরের হাওয়া দূর্বল হওয়াতে ঠান্ডা কম, তবে কয়েকদিনের মধ্যে অবস্থা ফিরবে – আবহাওয়া দপ্তর

Topnewstoday

সিবিআইয়ের ফাঁদে শিলিগুড়িতে গ্রেপ্তার আরপিএফ অফিসার

Topnewstoday

মুখ্যমন্ত্রীর সফরে পিছিয়ে গেল পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ নির্বাচন

Topnewstoday

Leave a Comment