• Home
  • খবর
  • প্রেমের ফাঁদে ফেলে প্রতারণা এভাবেই পরপর চারটি বিয়ে করে ফাসলো চতুর জামাই
খবর মালদা

প্রেমের ফাঁদে ফেলে প্রতারণা এভাবেই পরপর চারটি বিয়ে করে ফাসলো চতুর জামাই

নিজস্ব সংবাদদাতা, মালদা, ১৩ ফেব্রুয়ারী;

প্রেমের ফাঁদে ফেলে প্রথমে বিয়ে তারপরে পনের দাবি, না দিতে পারলে ডিভোর্সের হুমকি। এভাবেই পরপর চারটি বিয়ে করে ফাসলো চতুর জামাই । চতুর্থ স্ত্রী এক কলেজ ছাত্রীকে বিয়ে করার পরে স্বামীর আগের তিনটি বিয়ের বিষয়ে জানতে পেরে যায় বিবাহিত ওই কলেজ ছাত্রী স্ত্রী। আর তা নিয়ে প্রতিবাদে সরব হন ওই গৃহবধূ।  কিন্তু প্রতিবাদ করায় চতুর্থ স্ত্রী ওই কলেজছাত্রীকে ব্যাপক মারধর করে অভিযুক্ত স্বামী বলে অভিযোগ । এরপর পুলিশ ও পাড়া প্রতিবেশীদের দ্বারস্থ হন আক্রান্ত ওই মহিলা। পাড়া প্রতিবেশীদের একাংশ অভিযুক্তকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। সেই সঙ্গে গ্রেপ্তার করা হয়েছে অভিযুক্তের মাকেও। মঙ্গলবার রাতে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পুরাতন মালদা থানার মঙ্গলবাড়ী এলাকার ছাতিয়ান মোড়ে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,  ধৃতের  নাম প্রসেনজিৎ কর্মকার । পেশায় গ্যারেজ মিস্ত্রি । ফর্সা,  সুন্দর এবং মিষ্টিভাষী হওয়ার কারণেই পুরাতন মালদা থানা এলাকার একটি কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী অভিযুক্ত প্রসেনজিতের প্রেমের ফাঁদে পড়েছিল। গত বছর তাদের বিয়েও হয় । কিন্তু বিয়ের পর থেকে ওই দম্পতির মধ্যে পণের টাকা নিয়ে ব্যাপক গোলমাল শুরু হয় । প্রায় দিনই স্ত্রীকে মারধর করত প্রসেনজিৎ । এরপরই বিবাহিত ওই কলেজছাত্রী জানতে পারেন তার স্বামীর আগের পক্ষের তিনটি স্ত্রী রয়েছে । এই বিষয়টি নিয়ে বিবাদ আরো চরমে ওঠে।  প্রতিবাদে সরব হন ওই কলেজছাত্রী । আর সেই কারণেই মঙ্গলবার রাতে স্ত্রীকে ব্যাপক মারধর করে অভিযুক্ত এবং তার পরিবারের লোকেরা।

পুরাতন মালদা থানার কোট স্টেশন এলাকার বাসিন্দা আক্রান্ত ওই কলেজ ছাত্রী পুলিশকে অভিযোগে জানিয়েছেন,  প্রসেনজিতের যে আগের পক্ষের তিনটি বিয়ে হয়েছে তা জানতাম না । ওর সঙ্গে ভাব হওয়ার পর পালিয়ে বিয়ে করি। পরে তিনটি বিয়ের বিষয়ে জানতে পারি। কারণ শ্বশুর বাড়িতেই আগের পক্ষের স্ত্রীরা এসে নানাভাবে ঝামেলা করে যাচ্ছিল। তখনই আমার চোখ খুলে যায়। এরই মধ্যে প্রসেনজিৎ আমার বাবার কাছ থেকে  ৫০ হাজার টাকা নিয়ে আসার জন্য চাপ দেয়।  কিন্তু আগের পক্ষের স্ত্রীরা রয়েছে তা নিয়ে আমি প্রতিবাদ শুরু করি । তখনই শাশুড়ি ও স্বামী আমাকে লোহার রড দিয়ে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেয়। রক্তাক্ত অবস্থায় আমি পুরাতন মালদা থানায় গিয়ে পুলিশের কাছে স্বামী ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছি । পরে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যায়।

এদিকে এই ঘটনার পরই অভিযুক্তের এই কার্যকলাপে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন ছাতিয়ান মোড় এলাকার একাংশ বাসিন্দারা । তারাই পরে অভিযুক্তকে হাতেনাতে ধরে গণপিটুনি দেয় । এবং পুরাতন মালদার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।  পুলিশ জানিয়েছে,  অভিযুক্ত প্রসেনজিৎ কর্মকার এবং তার মা লিলা কর্মকারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুরো ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

Related posts

বহুতলের নীচ থেকে উদ্ধার নেশায় আসক্ত যুবক, তদন্তে পুলিশ

Topnewstoday

মানিকচকের অগ্নিকাণ্ডের মৃত ৬ জনকে খুন করার ঘটনায় মূল অভিযুক্ত মাখন মন্ডলকে গ্রেফতার করল পুলিশ

Topnewstoday

কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গলার নলি কেটে খুন করার অভিযোগ উঠলো প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে

Topnewstoday

Leave a Comment